ছেলেদের থেকে মেয়েরাই অধীক নোংরা “বিছানায়” জানালো সমীক্ষা

এই প্রতিবেদন পড়তে বসে মনে হতেই পারে, এতে লিঙ্গ বৈসম্মতা

রয়েছে। কিন্তু এক্ষেত্রে কিছু করার নেই। তেমনই রায় দিচ্ছে এক নতুন সমীক্ষা।

মানুষের স্বভাবকে একরৈখিক ভাবে দেখা যায় না। যে মানুষটি তাঁর কাজের জায়গায় অসম্ভব পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি, সেই ব্যক্তিই তাঁর বেডরুমে রীতিমতো অগোছালো এবং অপরিপাটি। পারিপাট্য ও পরিচ্ছন্নতার ক্ষেত্র হিসেবে যদি বিছানাকে ধরা যায়, তা হলে নাকি ‘নোংরামি’-তে পুরুষদের চাইতে ঢের এগিয়ে রয়েছেন মেয়েরা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘মিরর’-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, প্রখ্যাত ম্যাট্রেস ও শয্যা-সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী সংস্থা ‘আর্গোফ্লেক্স’ এক সমীক্ষা পরিচালনা করে দেখেছে যে, যুক্তরাজ্যে পুরুষরা সাধারণত দু’সপ্তাহে তাঁদের বিছানার চাদর কাচেন। সেখানে মহিলারা এই কাজটি করেন মাসে এক বার।

‘আর্গোফ্লেক্স’ তার সমীক্ষায় ১৮-৩৫ বছর বয়সি ২০০০ ব্রিটেনবাসী নারী-পুরুষকে তাঁদের বেডরুম-স্বভাব সংক্রান্ত কিছু প্রশ্ন পাঠায়। এই প্রশ্নের উত্তরে তাঁরা যা জানান, তা থেকে উঠে এসেছে আশ্চর্য সব তথ্য। ‘আর্গোফ্লেক্স’-এর এক মুখপাত্র সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এই সমীক্ষা থেকে তাঁরা যা জেনেছেন, তার সারমর্ম— বেডরুমে পুরুষরা মেয়েদের চাইতে অনেক বেশি মাত্রায় স্বাস্থ্যবধি মেনে চলেন।

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, পুরুষদের চাইতে সে দেশের বেশির ভাগ মহিলা বিছানার চাইতে সোফায় ঘুমোতে পছন্দ করেন। রাত্রিবাস কাচাকাচির ব্যাপারেও মহিলাদের চাইতে এগিয়ে রয়েছেন ব্রিটিশ পুরুষ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *