যে লক্ষণগুলো দেখে বুঝবেন হার্ট অ্যাটাক আসন্ন।

বর্তমানে পৃথিবীতে প্রতিবছর প্রায় ছয় থেকে সাত লক্ষ মানুষ হার্ট অ্যাটাকে মারা যান।পূর্বের তুলনায় হার্ট অ্যাটাক মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় 50% বৃদ্ধি পেয়েছে।কিন্তু যদি আমরা একটু সতর্ক হই তাহলে এই মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় অর্ধেক কমাতে পারব।
একটি মানুষের হার্ট অ্যাটাক হওয়ার বেশ কিছুদিন প্রায় পনেরো কুড়ি দিন আগে থেকে কিছু লক্ষণ দেখা দেয়।সেই লক্ষণগুলি খেয়াল করে যদি আমরা দ্রুত ডাক্তারের শরণাপন্ন হই সে ক্ষেত্রে এই মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটাই কমাতে পারব।সুতরাং আমরা কি দেখে বুঝব হার্ট অ্যাটাক আসন্ন।

বুকের কাছে ভার অনুভব হওয়া

হার্ট অ্যাটাক কোন আকস্মিক ঘটনা নয় এটি হওয়ার বেশ কিছুদিন আগে থেকে শরীরকে জানান দেয়।যেমন মনে হবে বুকের কাছে কেউ চেপে ধরে আছে অর্থাৎ একটা ভার মনে হবে। এবং হালকা ব্যাথা অনুভব হবে।এরকম পরিস্থিতি অনুভব করলে আমাদের ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

শ্বাস প্রশ্বাসের সমস্যা

হৃদরোগের সমস্যা থাকলে হৃদপিণ্ডের বিভিন্ন ধমনীতে রক্ত সঞ্চালনের সমস্যা দেখা যায় অর্থাৎ ফুসফুসের রক্ত সঞ্চালন ব্যাহত হয়।ফলে এ ক্ষেত্রে রোগীর শ্বাসকষ্ট শুরু হয়।এটি হার্ট অ্যাটাকের একটি অন্যতম লক্ষণ।

সর্দি কাশি

হার্ট অ্যাটাকের প্রায় এক দুমাস আগে থেকে রোগীর সর্দি কাশি লেগে থাকে এবং কোনোভাবেই এর থেকে নিরাময় পাওয়া সম্ভব নয়।

শরীর দুর্বল অনুভব

হিদ রোগ থাকলে রক্ত সঞ্চালন ঠিকঠাক হয় না। যার ফলে হৃদপিণ্ড বেশি কাজ করে ফলে শরীরে সবসময় দুর্বল অনুভব হয়। সব সময় শুয়ে থাকতে বেশী ভালো লা…

শরীর ভিজে যাওয়া

হার্ট অ্যাটাকের আরেকটি উল্লেখযোগ্য লক্ষণ হলো শরীর ভিজে যাওয়া অর্থাৎ কারণে-অকারণে মাত্রা অতিরিক্ত ঘাম হওয়া।এরকম লক্ষণ দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।
মাথা ঘোরানো
সবসময় মাথা ঘোরানো হার্ট অ্যাটাকের আরেকটি লক্ষণ এক্ষেত্রে সবসময় মাথা ঘোরা এবং শরীর দুর্বল দুর্বল অনুভব হয়।

অবসাদ

হৃদ রোগ থাকলে যেহেতু প্রয়োজনের তুলনায় হৃদপিণ্ড বেশি কাজ করে তাই ক্লান্তি সঙ্গে অবসাদ ও চলে আসে।
সুতরাং উপরিউক্ত লক্ষণগুলি দেখতে পেলেই ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া বাঞ্ছনীয়।

    [যদি প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার কমেন্ট ও লাইক করতে ভুলবেন না।]
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *