অগাস্টের মাঝামাঝিই চলে আসবে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন, দাবি রাশিয়ার বিজ্ঞানীদের

করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধকের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের সবকটি ধাপ ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে বলে দাবি করেছে রাশিয়ার সেচেনভ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা৷ তাঁদের দাবি অনুযায়ী বিশ্বের যে দেশগুলি ভ্যাকসিন তৈরির ক্ষেত্রে এগিয়ে রয়েছে, তাঁদের মধ্যে অগ্রণী স্থানে রয়েছে রাশিয়া৷ রাশিয়া ছাড়া এখনও পর্যন্ত কোনও দেশের গবেষকরাই করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ করার দাবি করতে পারেননি৷

যে স্বেচ্ছাসেবকদের উপরে এই ভ্যাকসিন পরীক্ষামূলক ভাবে প্রয়োগ করা হয়েছিল, তাঁদের ২০ জুলাইয়ের মধ্যে ছেড়ে দেওয়া হবে৷ সেচেনভ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল প্যারাসাইটোলজির ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ভেক্টর বোর্ন ডিজিজ বিভাগের ডিরেক্টর অ্যালেকজান্ডার লুকাসেভ জানিয়েছেন, এই ভ্যাকসিন যে সম্পূর্ণ নিরাপদ, তা নিয়ে কোনও সংশয় নেই৷ বাজারে অন্যান্য যে প্রতিষেধকগুলি রয়েছে, সেগুলির মতোই সমস্ত মানদণ্ডে উত্তীর্ণ হয়েছে এই প্রতিষেধক৷

একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, অগাস্ট মাসের মাঝামাঝি বিশ্বের প্রথম করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন তাঁরা লঞ্চ করতে পারবেন বলে আশাবাদী রাশিয়ার বিজ্ঞানীরা৷ অ্যালেকজান্ডার লুকাসেভ জানিয়েছেন, ১২ থেকে ১৪ অগাস্টের মধ্যেই ভ্যাকসিনটি সাধারণ মানুষের শরীরে প্রয়োগ করা যাবে বলে তিনি আশাবাদী৷ তাঁর আরও দাবি, আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকেই ওষুধ সংস্থাগুলি রাশিয়ার তৈরি এই ভ্যাকসিনটির বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করতে পারবে৷

প্রথম দফায় ১৮জন এবং দ্বিতীয় দফায় ২৩জন স্বেচ্ছাসেবকের উপরে এই ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা হয়েছিল৷ ১৮ থেকে ৬৫ বছর বয়সি ওই স্বেচ্ছাসেবকদের ২৮ দিন আইসোলেশনে রাখা হয়েছিল৷ আগামী ৬ মাস তাঁদের উপরে নজর রাখা হবে৷ সেচেনভ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গবেষক এলেনা স্মোলিরাচুক জানিয়েছেন, ভ্যাকসিন প্রয়োগের পর কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবকের সামান্য জ্বর এবং মাথাব্যথার মতো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল৷ কিন্তু একদিনের মধ্যেই তা কমে যায়৷তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তালিকা অনুযায়ী, এখনও রাশিয়ার তৈরি এই ভ্যাকসিনটি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রথম পর্যায়েই রয়েছে৷ যে কোনও ভ্যাকসিনেরই বাণিজ্যিক উৎপাদনের জন্য ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের তিনটি ধাপ সম্পূর্ণ করতে হয়৷

আরও পড়ুন : সরকারের বিরুদ্ধে বৈষম্যের অভিযোগ বিএসএনএলের

[যদি প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার কমেন্ট ও লাইক করতে ভুলবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *