”ইমরান খান বেইমান, দেশদ্রোহী, ওকে এবার শিক্ষা দেব”, বোমা ফাটালেন মিয়াঁদাদ

তাঁর মুখে হয়তো কিছুই আটকায় না। তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রীকেও যা খুশি বলতে পারেন। আর তাও চাচাছোলা ভাষায়। অবশ্য জাভেদ মিয়াঁদাদ আগেও বলেছেন, তিনি দেশের ক্ষতি করা লোকদের ছেড়ে কথা বলবেন না। আর এখন তাঁর মনে হচ্ছে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দেশ ও দেশের মানুষের সঙ্গে বেইমানি করেছেন। আর তাই তিনি এবার তাঁকেও শাস্তি দেবেন। মিয়াঁদাদের এমন জোড়ালো বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছে পাকিস্তান। ১৯৯২ সালে বিশ্বকাপ জয়ী পাকিস্তান দলের সদস্য মিয়াঁদাদ একের পর এক গুরুতর অভিযোগ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে্।

মিয়াঁদাদ তাঁর ইউ টিউব চ্যানেলে বলেছেন, ”পাকিস্তানের আওয়ামের সঙ্গে বেইমানি করেছে ইমরান খান। ও নিজেকে আল্লাহ্ ভাবতে শুরু করেছে। ওকে মনে করছে যা খুশি তাই করবে। কেউ আটকানোর নেই। দেশের প্রধানমন্ত্রী ওকে আমি বানিয়েছি। আমার সহায়তা না থাকলে ও এত বড় পদে কোনওদিন বসতে পারত নাকি! আর ও দেশের জন্য কী করছে! দেশকে ধোকা দিচ্ছে ও। ইমরান খানকে এবার আমি শিক্ষা দেব। দেশের সঙ্গে খারাপ কিছু করা কাউকে আমি ছাড়ব না।” তিনি আরও বলেন, ইমরান খান মনে করে পিসিবি চালানোর লোক পাকিস্তানে নেই। তাই বিদেশিদের নিয়োগ করেছে। এবার বিদেশিরা পিসিবি থেকে টাকা তছরুপ করে পালিয়ে গেলে কে তাদের ধরে আনবে! পিসিবিতে একের পর এক ভুল লোক নিয়োগ করেছে ইমরান খান। তারা লুটেপুটে খাচ্ছে।

মিয়াঁদাদ জানিয়েছেন, পাকিস্তানের ডিপার্টমেন্টাল ক্রিকেট বন্ধ করে দিয়েছেন ইমরান খান। ফলে ঘরোয়া ক্রিকেটে চুটিয়ে খেলা অনেক ক্রিকেটার এখন বেকার হয়ে গিয়েছে। তিনি বলেছেন, ”ইমরান খান নিজেও ডিপার্টমেন্টাল ক্রিকেট খেলেছে। শোয়েব মালিক, বাবর আজম, ফাওয়াদ আলমের মতো ক্রিকেটাররাও এই টুর্নামেন্ট খেলে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছে। এখানে খেলে অনেক ক্রিকেটার চাকরি পেত। কিন্তু ইমরান খান এবার সেটা বন্ধ করে দিয়েছে। যা পারছে ও করছে। নিজে একজন ক্রিকেটার হয়ে ও ক্রিকেটারদের ক্ষতি করছে।”

আরও পড়ুন : ৪০০ টাকা থেকে ১২০০টাকা, ইলিশ কিনতে মানুষের ঢল বাজারে

[যদি প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার কমেন্ট ও লাইক করতে ভুলবেন না]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *