খুব ঘাম হচ্ছে ? রোগের উপসর্গ নয় তো !

খুব গরম পড়লে বা খুব পরিশ্রম করলে ঘাম হওয়াটা স্বাভাবিক ৷ কিন্তু অযথা যদি ঘাম হয় তাহলে চিন্তার কারণ ৷ অনেকেই ঘামেন বেশি৷ বসে বসেই অনেকের হাত ঘেমে যায়, আবার অনেকের পা-ও ঘামে ৷ আমরা এই সবকে খুব একটা পাত্তা দিই না ৷ কিন্তু চিকিৎসকরা বলছেন, এই ঘাম হওয়া রোগের উপসর্গ ৷ তাঁদের কথায়, বিশেষ কিছু রোগের উপসর্গ এই অযথা ঘাম হওয়া !

১. রক্তের শর্করার ওঠনামা করা ডায়াবেটিসে খুব স্বাভাবিক। ডায়াবেটিস রোগে স্নায়ুর ক্ষতি হয়। এসব কারণে এই রোগীদের প্রচুর ঘাম হতে পারে। তাই অযথা ঘাম হলে, প্রথমেই রক্তের শর্করা পরীক্ষা করুন ৷ দরকার পড়লে চিকিৎসকের সাহায্য নিন৷

২. যখন হার্ট রক্ত পাম্প করতে অসুবিধা বোধ করে, তখন অনেক বেশি চাপ বোধ হয়। এটি অতিরিক্ত ঘামের কারণ হয়। বেশি ঘাম হৃদরোগের একটি লক্ষণ। চিকিৎসকের কথা, বিনা কারণে ঘাম হলে অবশ্যই ডাক্তার দেখান ৷ অনেক সময় হৃদপিন্ডে সমস্যা হলে এরকম হতে পারে ৷

৩. অনেক সময় অতিরিক্ত উদ্বেগের সময় ঘাম হয়। উদ্বেগ চাপযুক্ত হরমোনকে বাড়িয়ে দেয়। এতে বেশি ঘাম হয়। তাই যারা মানসিক চাপে ভুগছেন, তারা ডাক্তারের পরামর্শ নিন ৷

৪. মেনোপজের সময় অনেক নারীরদের ঘামের সমস্যা হয়। বুক ও ঘাড়ে বেশি ঘাম হয়। রক্তে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা বাড়লেও ঘাম হয় ৷ তাই রক্ত পরীক্ষা করে তা জেনে নিন ৷ দরকারে ডাক্তার দেখান ৷

আরও পড়ুন : ভুল করে বলে লালা, নিয়ম বদলের পর মাঠে নিষিদ্ধ কাজ করে বসলেন ব্রিটিশ তারকা

[যদি প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার কমেন্ট ও লাইক করতে ভুলবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *