পরীক্ষার সিলেবাস কমাচ্ছে রাজ্য! শিক্ষাবিদ-মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সঙ্গে আলোচনা শুরু সিলেবাস কমিটির

#কলকাতা: ছাত্র-ছাত্রীদের উপর চাপ কমাতে এবার সিলেবাস কমানোর প্রক্রিয়া শুরু করল স্কুল শিক্ষা দফতর। প্রি-প্রাইমারি থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত এই পরিকল্পনা নেওয়া হলেও আপাতত নবম, দশম, একাদশ এবং দ্বাদশের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য প্রাথমিকভাবে সিলেবাস কমানোর তোড়জোড় শুরু করেছে রাজ্য। যদিও সিলেবাস কমিটির তরফে রাজ্যের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এবং মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সঙ্গে কথা বলে  তবেই এ বিষয়ে চূড়ান্ত প্রস্তাব রাজ্যের কাছে পেশ করবে সিলেবাস কমিটি।

লকডাউনের জন্য কারণে কার্যত চার মাস স্কুল বন্ধ রয়েছে। অনলাইনে ক্লাস হলেও বোর্ড পরীক্ষা বিশেষত মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস রুমে ক্লাস না হওয়ার জন্য সিলেবাস কমানোর প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। সেই দিকে তাকিয়েই কিভাবে বা কোন কোন প্রসঙ্গকে বাদ দেওয়া যায় সেই বিষয়ে আলাপ-আলোচনা শুরু করল সিলেবাস কমিটি। এ প্রসঙ্গে সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান অভিক মজুমদার News 18 বাংলা-কে জানিয়েছেন, “আগামী বছরের পরীক্ষার জন্য  কীভাবে সিলেবাস কমানো যায়, তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সঙ্গে এই বিষয় নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। আলোচনা হয়েছে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সঙ্গেও। শিক্ষাবিদদের থেকে মতামত নেওয়ার পর এই বিষয়ে আমাদের তরফের চূড়ান্ত প্রস্তাব যাবে রাজ্যের কাছে।”

গত সপ্তাহেই আইসিএসই সিলেবাস কমানোর কথা জানিয়েছে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত। মঙ্গলবার ৩০% সিলেবাস কমানোর কথা জানিয়েছে সিবিএসই বোর্ড। যদিও সিলেবাস কমানো হলেও যে যে অংশগুলো বাদ পড়েছে তা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জন্য রাজ্যের স্কুল বন্ধ রয়েছে। অনলাইনে ক্লাস নেওয়া হলেও একাধিক স্কুল বিশেষত জেলাগুলির প্রত্যন্ত অঞ্চলের স্কুলগুলির ছাত্র ছাত্রীদের ক্ষেত্রে অন-লাইনে ক্লাস না করা সম্ভব হচ্ছে না। সেক্ষেত্রে ২০২১-এর মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিকের ক্ষেত্রে যে সিলেবাস কমানোর প্রয়োজনীয়তা রয়েছে, তা আগেই বুঝতে পেরেছিলেন স্কুল শিক্ষা দফতরের আধিকারিকরা।

এবার তাই আইসিএসই, সিবিএসই এর পর রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের আধিকারিকরা প্রি-প্রাইমারি থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত কীভাবে সিলেবাস কমানো যায় তা নিয়ে আলাপ-আলোচনা শুরু করল। এর আগে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ভবিষ্যৎ নিয়ে সিলেবাস কমিটি ও রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতর, শিক্ষাবিদদের মতামত নিয়েছিল। এক্ষেত্রেও সিলেবাস কমান হলে, সেক্ষেত্রে কী কী অংশ বাদ দেওয়া হবে তা নিয়েও শিক্ষাবিদদের মতামতের পাশাপাশি মধ্যশিক্ষা পর্ষদ, উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের মতামত নেবে সিলেবাস কমিটি। সিবিএসই-র সিলেবাস কমানো প্রসঙ্গ টেনে খোঁচা দিয়ে সিলেবাস কমিটির চেয়ারম্যান অভীক মজুমদার বলেন, “আমরা সিলেবাসে রাজনীতিকরন করব না। সিবিএসই বোর্ড সিলেবাসের যে সব অংশ বাদ দিয়েছে তাতে ইতিহাস নষ্ট হচ্ছে। আমরা শিক্ষাবিদদের মতামত বিভিন্ন স্তরের সঙ্গে আলোচনা করে তবেই রাজ্য সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠাবো।”

আরও পড়ুন : সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ দিতেই হবে, রাজ্য সরকারের আবেদন খারিজ করল স্যাট

[যদি প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার কমেন্ট ও লাইক করতে ভুলবেন না।]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *