৩০ জুন থেকে বদলাতে চলেছে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত এই নিয়ম….

কেন্দ্র সরকারের ঘোষণার আগেই এসবিআই ন্যূনতম ব্যালেন্স রাখার বাধ্যতামূলক নিয়ম তুলে নিয়েছিল ৷

#নয়াদিল্লি: ৩০ জুন থেকে বদলাতে চলেছে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত একাধিক নিয়ম ৷ মার্চের শেষে দেশজুড়ে লকডাউনের ঘোষণার পর অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন কোটি কোটি ব্যাঙ্ক গ্রাহকদের জন্য বিশেষ কয়েকটি ঘোষণা করেছিলেন ৷ লকডাউনে যাতে সাধারণ মানুষ টাকার জন্য সমস্যায় না পড়েন তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল ৷ তিনি জানিয়েছিলেন, আগামী ৩ মাস অর্থাৎ ৩০ জুন পর্যন্ত কোনও ব্যাঙ্কের সেভিংস অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম ব্যালেন্স রাখা বাধ্যতামূলক থাকবে না ৷ যদি কেউ ন্যূনতম ব্যালেন্স রাখতে অসফল হন তাহলে তাকে কোনও পেনাল্টি দিতে হবে না ৷ এপ্রিল, মে ও জুন মাসের জন্য এই নিয়ম লাগু করা হয়েছিল ৷ এখনও পর্যন্ত অর্থমন্ত্রী বা ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়নি এই ছাড় আরও বাড়ানো হবে না ৩০ জুন শেষ হয়ে যাবে ?

স্টেট ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের অবশ্য চিন্তার কোনও কারণ নেই ৷ কেন্দ্র সরকারের ঘোষণার আগেই এসবিআই ন্যূনতম ব্যালেন্স রাখার বাধ্যতামূলক নিয়ম তুলে নিয়েছিল ৷ ১১ মার্চ বিজ্ঞপ্তি জারি করে ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়েছিল যে মিনিমাম ব্যালেন্স না রাখলে আর গ্রাহকদের থেকে কোনও পেনাল্টি চার্জ নেওয়া হবে না ৷ এর আগে মেট্রো শহরের জন্য সেভিংস অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম ৩০০০ টাকা, শহরতলীতে ২০০০ ও গ্রামীণ এলাকায় ১০০০ টাকা রাখা বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল ৷ ন্যূনতম ব্যালেন্স না রাখলে ব্যাঙ্কের তরফে ৫ থেকে ১৫ টাকা প্লাস ট্যাক্স পেনাল্টি হিসেবে নেওয়া হত ৷

ন্যূনতম ব্যালেন্সের পাশাপাশি কেন্দ্র সরকারের তরফে এটিএম থেকে ক্যাশ তোলার (ATM Withdrawal Charge) চার্জও তুলে নেওয়া হয়েছিল ৷ ডেবিট কার্ড হোল্ডারদের তিন মাসের জন্য এই ছাড় দেওয়া হয়েছিল ৷ সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল ডেবিট কার্ড হোল্ডাররা যে কোনও ব্যাঙ্কের এটিএম থেকে টাকা তুলতে পারবেন ৷ এর জন্য কোনও চার্জ দিতে হবে না ৷ কেন্দ্র সরকারের তরফে জানানো হয়েছিল যে লকডাউনে যাতে কম সংখ্যাক মানুষ ব্যাঙ্কে যান তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল ৷

আরও পড়ুন:কেন তাঁকে সপাটে চড় মেরেছিলেন হরভজন সিং! এত বছর পর জানালেন শ্রীসন্থ

[যদি প্রতিবেদনটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে শেয়ার কমেন্ট ও লাইক করতে ভুলবেন না।]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *